সাম্প্রতিক:

চলছে ফেব্রুয়ারী, চলছে ভাষার মাস

mother language Bangla

আমি বাংলায় গান গাই

আমি বাংলার গান গাই,

আমি আমার আমিকে চিরদিন

এই বাংলায় খুজে পাই।

এই গানটা শুনলে কম বেশি সবার মনেই বাংলা ভাষার প্রতি সবারি একটু আবেগ একটু ভালবাসার বহিপ্রকাশ বেরিয়ে আসে। কিন্তু এই বাংলা কিভাবে আমাদের হলো, এমনি এমনি তো আর এই ভাষার এত কদর সৃষ্টি হয় নি।

বাংলা ভাষার ইতিহাস কমবেশি সব বাঙ্গালীরই জানা আছে। ভাষার মাস ফেব্রুয়ারীতে ঘটে ছিল এক মরমান্তিক ঘটনা। ঢাকা মেডিকেল এর নিকটেই গুলি খেয়েছিল কিছু বাংলার সন্তান, সন্তান হারা হয়েছিল বাংলার মায়েরা। কিন্তু তাদের এই ত্যাগ এর ফলে একটি জাতি পায় তার পরিচয়।

ইতিহাসের পাতায় এই বঙ্গমাতার সন্তানদের নাম লেখা আছে স্বর্ণাক্ষরে। রফিক, সালাম, জব্বার, বরকত ইতিহাসের পাতায় হয়ে আছে চিরভাস্বর। তারা হয়ে আছে চির অমর এবং তাদের ভুষিত করা হয়েছে শহীদের খেতাবে। বাংলা ভাষাভাষী প্রতিটি মানুষ তাদের এই ত্যাগ কে জানায় সালাম।

Respect to the martyr who gives their lives for our mother tongue

আন্তর্জাতিক সংস্থা ইউনেস্কো ওই মর্মান্তিক ঘটনা কে স্মরণ করে ওই দিনটিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস নামে সারাবিশ্বে পালন করার ঘোষনা দেন। বাংলাকে নিয়ে আমাদের গর্ব, বাংলার প্রতি ভালবাসা জানিয়ে সেদিন তারা প্রান দিয়েছিল, আর আজ আমাদের দায়িত্ব এই বাংলা ভাষা কে টিকিয়ে রাখা।

আজ আমাদের সমাজে অপসংস্কৃতির বদৌলতে আমাদের ভাষা তার নিজস্ব রূপ হারিয়ে বিকৃত রূপে পরিবর্তিত হয়ে যাচ্ছে। এটা ঠিক না। আমাদের ভাষা আমাদের সংস্কৃতি রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের। সেদিনের সেই শহীদদের রক্তের দান আমরা এমনি এমনি বিলীন হয়ে যেতে দিতে পারি না।

শুধুমাত্র ২১শে ফেব্রুয়ারীতে শহীদ মিনারে গিয়ে ফুল দিলেই আমাদের দায়িত্ব শেষ না। এই ভাষার জন্য টান রেখে, এই ভাষার সকলের প্রতি ভালবাসা রেখে বাংলা ভাষার আসল রূপকে রক্ষা করা আমাদের গুরুদায়িত্ব। এটাকে হেলা করা একদম উচিত না।

তবে বাংলা ভাষাকে রক্ষা করতে না পারলেও এটাকে কখনো যেন অবজ্ঞা করা না হয় সেদিকে আমাদের নজর রাখার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি। বঙ্গ মাতার বীর বাঙ্গালী তোমাদের জানাই হাজার সালাম।